বিজ্ঞপ্তি:
আমাদের ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম
সংবাদ শিরোনাম:
গলাচিপায় পাবলিক পরীক্ষা কেন্দ্রসমূহে প্লাষ্টিকের বেঞ্চ বিতরণ গলাচিপা উপজেলা আওয়ামী লীগের নবগঠিত কমিটির পরিচিতি সভা লেবুখালী সেতুটি শহীদ আলাউদ্দিন সেতু নাম করনের দাবীতে কলাপাড়ায় মানববন্ধন ও সমাবেশ।। গলাচিপায় স্কুলের মাঠে গরুর হাট কলাপাড়ায় যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটি’র দুইদিন ব্যাপী ওরিয়েন্টেশন কুয়াকাটা পর্যটন কেন্দ্রের দ্বার খুলছে কাল, সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে পর্যটন নির্ভর ব্যবসায়ীরা কলাপাড়ায় গ্রাম পুলিশদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ । করোনার সংকটময় মুহূর্তে অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে “কলাপাড়া উপজেলা সমিতি,ঢাকা পিরোজপুরে নতুন এসপি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সাইদুর রহমান পিরোজপুরে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তার নগদ অর্থ পেলে ৬৭৫ টি পরিবার
আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর | স্পন্সর - একতা হোস্ট
সাগরে মাছ শিকারের অপেক্ষায় উপকূলীয় জেলেরা, প্রস্তুতি সম্পন্ন।

সাগরে মাছ শিকারের অপেক্ষায় উপকূলীয় জেলেরা, প্রস্তুতি সম্পন্ন।

সাইদুর রহমান সাইদ, কুয়াকাটা প্রতিনিধিঃ দীর্ঘ ৬৫ দিন ইলিশ শিকারের নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে ২৩ জুলাই। আবারও সাগরে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন উপকূলের কুয়াকাটা, আলীপুর ও মহিপুরের জেলেরা। সরকারি নিষেধাজ্ঞা শেষ হবার প্রহর গুনছেন। সাগরে ফিরতে ব্যস্ত সময় কাটছে আড়ৎপট্রি ও জেলেপল্লীগুলোতে। নিষ্প্রাণ জনপদ হয়ে উঠছে প্রাণচাঞ্চল্য। তর সইছেনা জেলেদের। কথা বলার সময় নেই। আপন কাজে মনোনিবেশ করছে সবাই। প্রতীক্ষার সময় যেন কাটেইনা। অপেক্ষা করা ঘন্টার চেয়েও অধিক মনে হয়। মুখের কোনায় হাসির রেখা ফুটে উঠার আভাস। এমনি ঈদ উৎসব বিরাজ করছে জেলে পল্লীগুলোতে।

কুয়াকাটা, আলীপুর ও মহিপুর আড়ৎপট্টির খবর নিয়ে জানাগেছে, দীর্ঘ ৬৫ দিনের অবসরে জেলেরা জাল ও মালিকরা ট্রলার মেরামতের কাজ শেষ করেছেন। এখন শুধু অপেক্ষা মাছ ধরায়, এ নিয়ে পরিবারগুলোতেও দেখা গেছে প্রাণচাঞ্চল্য।

মৌসুমের অর্ধেকটা সময় পেরিয়ে গেলেও জেলেদের জালে মিলবে ঝাঁকে ঝাঁকে রুপালী ইলিশ, মৎস্য আড়ৎ গুলোয় ফিরে আসবে বাণিজ্যিক প্রাণচাঞ্চল্য এমনটাই প্রত্যাশা জেলেসহ ব্যবসায়ীদের।

রমৌসুমের শুরুর আগে করোনা,পরে আবার অবরোধ, অবরোধকালীন সময়ে প্রণোদনা না দেওয়া এবং অবরোধকালীন সময়ে দেশের জলসীমানায় প্রতিবেশী রাষ্ট্রের জেলেদের মাছ ধরা নিয়ে ক্ষুব্ধ জেলেরা। কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে ভারতীয় ফিসিং ট্রলার বাংলাদেশের জল সিমারেখায় ডুকে মাছ ধরে। প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সাথে সমন্বয় করে অবরোধকালীন সময়সীমা নির্ধারনের দাবী জেলেসহ ব্যবসায়ীদের।

কুয়াকাটার পাঞ্জুপাড়া গ্রামের মো. সগির হাওলাদার বলেন, ‘আগামী বছর বেশি মাছ পাওয়ার আশায় নিষিদ্ধ সময়ে সাগরে যাইনি। কষ্ট করে ৬৫ দিন পার করেছি। এখন সাগরে যাওয়ার পালা।

মহিপুর সদরের জেলে মো. ফারুক বলেন, করোনার কারনে আমরা যে কষ্টে ছিলাম তা কইয়া(বলে) বুঝানো যাইবেনা। আল্লাহ যদি দেয় মাছ তাহলে কিছুটা দুঃখ ভুলে থাকা যাবে।
আল্লাহর দান বোর্ডের মাঝি রহমান জানান, মাছ শিকার ছাড়া আর কোন পেশার অভিজ্ঞতা না থাকায় অবরোধকালীন সময়ে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করতে হয়েছে।

আলীপুর ফিশিং ট্রলার মাঝি সমিতির সভাপতি নুরু মাঝি বলেন, সরকারের দেওয়া অবরোধ মেনেছি। কিন্তু ভারতীয় জেলেরা এ অবরোধের সুযোগ কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশের জলসীমানায় প্রবেশ করে প্রচুর ইলিশ শিকার করে নিয়েছে। বিসমিল্লাহ ফিশিং ট্রলারের মাঝি গোলাম মোস্তফা বলেন, পার্শ্ববর্তী রাষ্ট্রের সাথে সমন্বয় করে অবরোধ দেওয়াসহ এসময়ে জেলেদের প্রণোদনা জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি।

মহিপুর মৎস্য বন্দর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ফজলু গাজী বলেন, মহামারি করোনা ও মৌসুমের শুরুতে অবরোধের ফলে দখিনের বড় মাছের মোকাম আলীপুর-মহিপুরের আড়ৎ গুলো হয়ে পড়েছিল নিস্প্রান। বেকার, আলস, মানবেতর সময় পার করেছেন সংশ্লিষ্ট শ্রমিক। এখন কর্ম চঞ্চল হয়ে উঠছে। আশা করছি সাগরে প্রচুর মাছ ধরা পড়বে।

কলাপাড়া উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মনোজ কুমার সাহা বলেন, এ অবরোধের ফলে জেলেদের জালে প্রচুর ইলিশ ধরা পরার সম্ভাবনা রয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

banner728x90

banner728x90




১৯৬১ সালের স্বেচ্ছামূলক সমাজকল্যাণ প্রতিষ্ঠান অধ্যাদেশ নম্বর ৪৬ এর ৪ (৩) ধারার অধীনে নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠান রুরাল ইনহ্যন্সমেন্ট অর্গানাইজেশন( রিও) নিবন্ধন নং -সসেঅদ/ পটুয়া/ ৬৬৩ এর উন্নয়ন প্রকাশনা
কারিগরি সহায়তা: Next Tech